decenturion.com এ কাজ করে নিজের কেরিয়ার গঠন করুন।


আজ আমি আপনাদের সাথে কথা বলবো https://Decenturion.com এই প্লাটফরম নিয়ে।ডিসেনচারিয়ন এ কাজ কারে মাসিক বেতন নিয়ে আপনি আপনার কেরিয়ার টা সুন্দর করতে পারবেন।তার জন্য সকল হেল্প আমি করবো।অনেকে এটা সম্পর্কে আমাকে ননা প্রশ্ন করেছে। আসোলে এই প্লাটফরম এর কাজ লক্ষ এ নিয়ে তেমন কোন কিছু তাদের অফিশিয়াল ওএবসাইট এ দেয়া নাই তবে একটা ইংলিশ ভিডিও আছে তা দেখে নতুনরা সহজে বুঝে উঠতে পারবে না।তো চলুন মূল কথায় আসি।
(১)ডিসেনচারিয়ন প্রতিষ্ঠাতা কে?
ডিসেনচারিয়ন পরিকল্পনা এবং স্পনসরশিপ : নিক এরমোলোভ যার জন্ম রাশিয়ার। তিনি বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার ক্রিপ্টোকেরেন্সির মালিক।তিনি বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করে।
(১) ডিসেনচারিয়ন কী?
যার বাংলা শালীনতা বা ভদ্রতা।এই প্লাটফরম এর ডিসেনচারিয়ন হলো বিশ্বের প্রথম ব্লোক চেইন রাষ্ট্র।তার মানে ডিসেনচারিয়ন ব্লোক চেইনের মাধ্যমে একটা রাষ্ট্র তৈরি করতে চায়।এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসবে ব্লোক চেইন কি?(যদি আপনার জানা না থাকে) তবে আজকাল ব্লোক চেইন আনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।এমন কি ফেসবুক কতৃপক্ষও নাকি ব্লোকচেইন ব্যাবহার করতে চায় এমন টা শোনা যাচ্ছে।
(২) ব্লকচেইন কী?
ব্লক চেইন হলো প্রযুক্তি ওয়েব ও ইন্টারনেট -এর মতো তবে তার চেয়েও বেশি সম্ভাবনাময় একটি প্রযুক্তি ও প্লাটফর্ম! আমরা সাধারণত কাগজের  মুদ্রা বা ডিজিটাল স্বাক্ষর সম্বলিত বস্তু ব্যবহার করে বাস্তব জীবনে এবং অনলাইনে লেনদেন সংক্রান্ত কাজগুলি করি। তবে বর্তমানে ব্যবহৃত এটিএম কার্ড, ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ড অথবা অন্য ডিজিটাল স্বাক্ষর সম্বলিত বস্তুগুলো ব্যবহার করি এসব লেনদেনের ক্ষেত্রে গ্রাহক ও গ্রহিতা উভয়কে তৃতীয় কোন পক্ষের উপর ‘ট্রাস্ট’ বা আস্থা রাখতে হয়, উদাহরণস্বরূপ ব্যাংক। লেনদেন করতে ব্যাংকে  একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের ফি দিয়ে থাকি।ব্লোক চেইন কে আমরা ব্যাংক এর সাথে তুলনা করতে পারি।তবে ব্যাংকে আমরা লেনদেন করলে অন্য কোন লোক তার কোন ডাটা দেখতে পায় না কিন্তু ব্লোক চেইনের মাধ্যমে লেনদেন করলে তার ডাটা ঐ ব্লোক এর  সবাই দেখতে পাবে।তবে একজন ব্যাবহারকরি অন্য ব্যাবহারকরির কাছে ক্রিপ্টোকেরেন্সি বা অনলাইন মুদ্রা যেমন (বিটকয়েন,লাইটকয়েন,ডগিকয়েন ইত্যাদি) ব্লোকে যত লোক আছে তারা কনফার্ম না করা পর্যন্ত সেন্ডিং কমপ্লিট হয় না তাই চুরি হওয়ার সম্ভাবনা কম।
(৩)ডিসেনচারিয়ন এর লক্ষ কী?
তারা একটা ব্লোকচেইন বিত্তক রাষ্ট্র গঠন করতে চায়।তাদের রাষ্ট্রের থাকতে হলে বা সুযোগ ভোগ করতে হলে ডিসেনচারিয়ন এর সিটিজেন হতে হবে।আর যখন কেউ সিটিজেন হবে তখন ডিসেনচারিয়ন রাষ্ট্রর কাজ গুলো করতে পারবে। এ জন্য তারা মাসে মাসে বেতন দিবে ১০০০$ করে তবে কাজ ভাল করলে প্রোমোশন হবে বেতন ও বাড়বে ঠিক বাস্তব জীবনের মত।
(৪)ডিসেনচারিয়ন এর সিটিজেন কি ভাবে হয়?
ডিসেনচারিয়ন সিটিজেন হতে হলে আপনাকে
ডিসেনচারিয়ন ডট কমে ডুকে  সিটিজেন এর জন্য আবেদন করতে হবে সাথে তাদের নিয়োম অনুসারে ২৫$ ক্রিপ্টোকেরেন্সি জমা দিতে হয়। তবে তা প্রথম মাসের বেতনের সাথে ফেরত পাবে।অথাৎ ১০০০$ বেতন+২৫$ জমা টাকা। তবে আপনি আপনার বেতন ক্রিপ্টোকেরেন্সি তে না নিয়ে বাস্তব ডলারেও ব্যাংক এর মাধ্যমেও নিতে পারবেন।তবে বতর্মানে আপনাকে এক মাসের জন্য সিটিজেন ফ্রিতে দিবে যদি আপনি ঐ এক মাসে ঠিক মত কাজ করেন তা হলে তারা আপনাকে কিউরেটর করে নিবে ঐ এক মাসে আপনি পাবেন ৫০০$ তার পরের মাস থেকে পাবেন ১০০০$ ডলার।
(৫)ডিসেনচারিয়ন এর কাজ কি বা বেতন পেতে হলে কি কাজ করতে হয়?

★ ডিসেনচারিয়ন কতৃিপক্ষ আপনাকে যা করে বলবে তাই আপনার কাজ।বর্তমানে কাজ হলো মিডিয়ার মাধ্যমে  সমস্ত বিশ্ব কে ডিসেনচারিয়ন সম্পর্কে জানানো।তা হতে পারে ব্লগ এর মাধ্যমে,ইউটিউব চ্যানেল দ্বারা,হতে পারে ফেসবুক গ্রুপ দ্বারা।
★ তাদের DCNT নামক নিজস্ব ক্রিপ্টোকেরেন্সি আছে তার টোকেন কিনতে মানুষ কে বলা।
★ তাদের টোকেন কেনা বেচার জন্য আগ্রহী মানুষ কে তাদের অফিশিয়াল টেলিগ্রাম গ্রুপ এখানে  জয়েন করানো।https://t.me/joinchat/FyD_B02m012pnAI1exfJMQ
★ নিজের পারমিশন প্রাপ্ত মিডিয়ায় নিয়মিত পোষ্টা করা।
(৬)  কি ভাব ফ্রি তে সিটিজেন নিয়ে কাজ করবো?
★ আপমাকে (এখান থেকে)  আবেদন ফরোম পূরণ করতে হবে।
★ ফ্রি তে সিটিজেন নিতে হলে আপনার ১০০০+ ফলোয়ার বা মিম্বার সমৃদ্ধ  ক্রিপ্টো-ব্লগ (steemit.com,minds.com etc) ফেসবুক গ্রুব,টুইটার ইত্যাদি মিডিয়া থাকতে হবে।তবে মোটামোটি ২০০+ হলে ফলোয়ার বা মিম্বার হলে তারা আপনাকে কাজ করার জন্য পারমিশন দিবে।
★ একাধিক মিডিয়া থাকলে প্রত্যেকটির জন্য আলাদা আলাদা আবেদন ফরোম পূরণ করতে হবে।প্রতেকটা মিডিয়ার জন্য আলাদা আলাদা বেতন পাবেন।যেমন আপনার তিনটি মিডিয়া পারমিশন পেলে আপনি বেতন পাবেন ১০০০$ সাথে ৩ গুন মানে ৩০০০$.
★ নিয়মিত আপনাকে পোষ্ট পাবলিশ করতে হবে।
★ সাপ্তাহিক কাজের ডকুমেন্ট তাদের কাছে পাঠাতে হবে।
(৭) তারা কি সত্তিই বেতন দিবে?
আমি বলবো ভাই আমার যাদের কাছ থেকে অফার পাইছি তাদের কে আমি আনলাইনের মাধ্যমে ৩ বছর আগে থেকে পরিচয় তারা কোন ২ নম্বর লোক না। তাই আপনি নির ভয়ে কাজ করতে পারেন।তা ছারা কাজ ও তো সহজ আর এ কাজ করতে আপনার কোন খরচ ও হবে না।তারা আপনার সাথে নিয়মিত যোগাযোগ তো রাখছেই।আপনি নিয়োমিত কাজ করে আপনার কেরিয়ার তৈরি করতে পারবেন।
যারা কাজ করতে আগ্রহী তারা আমার সাথে টেলিগ্রামে যোগাযোগ করতে পারেন।আমি আপনাদের সকল প্রকার সহায়তা করবো।
https://t.me/depubd
আমাদের বাংলাদেশর টেলিগ্রামে জয়েন করুন।
https://t.me/DCNTmediaofficeBangladesh

Comments

Popular posts from this blog

ডিসেন্চুরিয়নে কী এর কাজ, এর প্রতিষ্ঠাতা ও ইনকাম

DCNT টোকেনের বর্তমান মার্কেট।